WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

কোষ্ঠকাঠিন্য বা কষা পায়খানা দুর করার কয়েকটি উপায়?

Admin
0


কোষ্ঠকাঠিন্য বা কষা পায়খানা সাধারণত পাচনতন্ত্রের সমস্যা থেকে উৎপন্ন হয়ে থাকে। এই সমস্যার জন্য কয়েকটি উপায় নিম্নে দেয়া হলো:



১.প্রয়োজনীয় পানি প্রবাহিত করুন: প্রতিদিন যথায়থ পরিমাণে পানি পান করুন এবং আপনার দৈনন্দিন পানিতে পর্যাপ্ত তরল সবজি ও ফল অন্তর্ভুক্ত করুন। পানি আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যকে পরিষ্কার করে এবং পাচনতন্ত্রের নির্ধারিত কাজকর্ম সঠিকভাবে চালিয়ে যায়।


২.পুষ্টিকর খাবার পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রাম করুন: পুষ্টিকর খাবার যেমন সবজি, ফল, মাংস, মাছ, দুধ, দই, ডাল ইত্যাদি পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রাম করুন। সেবার সময় আপনি ক্ষুদ্র মাঝারি খাবারের মধ্যে পরিবর্তন করতে পারেন।


৩.পর্যাপ্ত ফাইবার সম্পন্ন খাবার গ্রাম করুন: ফাইবার সম্পন্ন খাদ্যপদার্থগুলি সহজেই পাচনতন্ত্রের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ব্রাউন রাইস, সাবজি, ফল, ব্রেড, ধনিয়া পাতা, অটম, মুগ ডাল ইত্যাদি পাচনযোগ্য ফাইবারের উৎস হতে পারে।


৪.নিয়মিত ব্যায়াম করুন: নিয়মিত ব্যায়াম করা আপনার পাচনতন্ত্রের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং কষা পায়খানাকে দূর করতে সহায়তা করে। প্রতিদিন যথায়থ কার্যক্রম যেমন হেলথ ওয়াকিং, যোগা, সাধারণ ব্যায়াম করতে পারেন।


৫.তন্দ্রাচ্ছন্নতা দূর করুন: সত্যিকারের কষা পায়খানার জন্য আপনার তন্দ্রাচ্ছন্নতা দূর করতে হবে। পর্যাপ্ত ঘুমানো, মানসিক স্ট্রেস কমাতে পারেন, মেডিটেশন ও রিল্যাক্সেশন প্রাক্টিস করতে পারেন।


৬.এগুলি হলো কয়েকটি প্রাথমিক উপায় কোষ্ঠকাঠিন্য বা কষা পায়খানা দূর করার। যদি সমস্যা বেশি বা জারজারি হয় বা আপনি আরও সাহায্য চান, তবে একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।





৭.পরিমিত খাদ্য পর্যাপ্ত সময়ে গ্রাম করুন: অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার ফলে কষা পায়খানা বা কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। তাই পরিমিত খাদ্য পর্যাপ্ত সময়ে গ্রাম করুন এবং পুষ্টিকর খাদ্যপদার্থগুলি একইভাবে উপভোগ করুন।


৮.পর্যাপ্ত প্রোবিয়টিক গ্রাম করুন: প্রোবিয়টিক খাদ্যপদার্থগুলি আপনার পাচনতন্ত্রকে সঠিক মানে কার্যকর করে এবং কষা পায়খানার সমস্যা দূর করতে সাহায্য করতে পারে। দই, কেফির, কমল্বটার ইত্যাদি প্রোবিয়টিক খাদ্যপদার্থ গ্রাম করতে পারেন।


৯.স্ট্রেস কমান: মানসিক তন্দ্রা ও স্ট্রেস কষা পায়খানার একটি মুখ্য কারণ হতে পারে। তাই স্ট্রেস কমানোর জন্য মেডিটেশন, যোগাসন, বিনোদন, শারীরিক ক্রিয়াকলাপ ইত্যাদি করতে পারেন।


যোগাযোগ করুন চিকিৎসকের সাথে: কষা পায়খানা বা কোষ্ঠকাঠিন্য যদি সাধারণ উপায়ে না দূর হয়, তবে সেক্ষেত্রে আপনি একজন চিকিৎসকের সাথে পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন। চিকিৎসক আপনার মাধ্যমে সঠিক পরামর্শ ও চিকিৎসা প্রদান করবেন।


দয়া করে মনে রাখবেন যে, কষা পায়খানা বা কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যার সমাধানের জন্য সেবার সময় এবং সহায়তার জন্য একজন প্রফেশনাল চিকিৎসকের পরামর্শ নেতে সবসময় উপযুক্ত।






১০.পানি প্রবাহ বৃদ্ধি করুন: পানি প্রবাহের অভাবে পাচনতন্ত্রিক সমস্যা হতে পারে। প্রতিদিন যথায়থ পরিমাণে পানি পান করুন এবং পর্যাপ্ত তরল ফল ও সবজি সেবন করুন। যদি প্রয়োজন হয়, তাপমাত্রা উচ্চ পানি গ্রাম করে এবং গরম পানি সেবন করুন।


১১.পর্যাপ্ত স্বপ্ন গ্রাম করুন: অনির্দিষ্ট সময়ে নিয়মিত পর্যাপ্ত ঘুমানো কষা পায়খানার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিদিন যথায়থ ঘুম পান করুন এবং নির্ধারিত ঘুমের সময় প্রকৃতি রূপ নেয়ার চেষ্টা করুন।


১২.প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করুন: কিছু প্রাকৃতিক উপাদান কষা পায়খানার সমস্যা দূর করতে সাহায্য করতে পারে। অ্যালোভেরা, এয়ালোভেরা রস, জিরা বীজ ইত্যাদি সাধারণত পাচনতন্ত্রিক সমস্যা দূর করতে ব্যবহৃত হয়। তবে এইসব পদার্থগুলি ব্যবহার করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।


১৩.রাতের খাদ্য ও খাবার সংযতন সীমাবদ্ধ করুন: রাতের সময়ে উচ্চ তরল খাবার বা পানি সেবন থেকে বিরত থাকুন। সবজি, ফল, রূটি, প্রোটিন সহজ পাচনযোগ্য খাদ্যপদার্থ সংযতন করুন। রাতে হেলথি খাবার পরিমাণ কম করুন।


এইগুলি হলো কয়েকটি উপায় অতিরিক্ত কষা পায়খানা দূর করার। মনে রাখবেন যে, প্রতিটি ব্যক্তির শরীরের প্রকৃতি এবং সমস্যার ধরণ ভিন্ন হতে পারে, তাই এগুলি শুধুমাত্র সাধারণ পরামর্শ মাত্র হিসাবে বিবেচনা করুন। যদি সমস্যা বা বিবেচনা বেশি হয় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তবে একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে সময় নিন।







একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)